ব্রেকিং নিউজ
মৌলভীবাজারে দুগ্ধ দিবসের অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি জিল্লুর রহমান এমপি কমলগঞ্জে ধলাই নদীর বাঁধ ভেঙ্গে এক লাখ লোক পানি বন্দি মৌলভীবাজারের পানিবন্দি মানুষের পাশে এমপি জিল্লুর রহমান রাজনগরে “সিসিমপুর মেলার উদ্বোধন মৌলভীবাজারে প্রার্থীতা ফিরে পেলেন তাজ টেংরাবাজার টু শমসেরনগর সড়ক সংস্কারের ভিত্তিপ্রস্তর করলেন এমপি জিল্লুর রহমান রাজনগরে কৃষি উপকরণ বিতরণ করলেন এমপি জিল্লুর রহমান মৌলভীবাজার সদর উপজেলায় ৩ হাজার কৃষকের মধ্যে কৃষি উপকরণ বিতরন মৌলভীবাজারে আট হাজার নারী পুরুষ পেলেন এমপি জিল্লুর রহমানের ঈদ উপহার বেশি করে খাদ্য উৎপাদন করতে পারলে কারো কাছে মাথা নত করতে হবে না- কৃষিমন্ত্রী

মৌলভীবাজারে হঠাৎ করে বেড়েছে পেঁয়াজ চালসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম

প্রথম পাতা » অনিয়ম-দুর্নীতি » মৌলভীবাজারে হঠাৎ করে বেড়েছে পেঁয়াজ চালসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম
বৃহস্পতিবার ● ১৮ মে ২০২৩


নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণ করুননিজস্ব প্রতিবেদক:
মৌলভীবাজারের বিভিন্ন বাজারে হঠাৎ করে আরেক দফা দাম বেড়েছে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের। ঝাঁঝ বেড়েছে পেঁয়াজের। বেড়েছে চালের দাম। ২৫ কেজি ও ৫০ কেজির চালের বস্তা প্রতি দাম বেড়েছে একশ টাকা থেকে দেড়শত টাকা। ৩ ঘন্টার ব্যবধানে পেঁয়াজের দাম বেড়েছে প্রতি কেজিতে পাঁচ টাকা থেকে দশ টাকা। বুধবার সন্ধ্যায় শহরের পশ্চিমবাজার, টিসি মার্কেটসহ বিভিন্ন দোকানে ৬৫ থেকে ৭০ টাকা দরে পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে। কিন্তু রাত দশটার পর হঠাৎ করে দাম বাড়িয়ে ৭৫ টাকা কেজি দরে পেঁয়াজ বিক্রি হতে দেখা যায়। এ বিষয়ে জানতে চাইলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক দোকনিীরা সরবরাহ কম অজুহাত দেখিয়ে বলেন বাড়তি দামে খুব কষ্টে পেঁয়াজ জোগাড় করতে হচ্ছে তাই বাড়তি দামে বিক্রি করতে হচ্ছে। জানতে চাইলে বাজার করতে আসা ক্রেতা মো: মাহবুবুর রহমান, সৈয়দ শাহেদ আহমদ ও মো্: বদরুল হোসেনসহ অনেকেই জানান এভাবে মনগড়া ভাবে জিনিসপত্রের দাম বাড়ানো হচ্ছে। মানুষ বেঁচে থাকা কঠিন হয়ে পড়েছে। নিম্ন আয়ের দিনমজুর শ্রেণীর মানুষ যে কিভাবে বাঁচবে বলা কঠিন। এছাড়া অনেকেই অভিযোগ করেন বাজার গুলোতে মানুষের পকেট কেটে নিচ্ছে কতিপয় অসাধু ব্যবসায়ী সিন্ডিকেট। দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতিতে নিম্নআয়ের মানুষের জীবন ওষ্ঠাগত। বাজারে চাল, ডাল, তেল, নুন, পেঁয়াজ, শাকসবজি থেকে শুরু করে এমন কোনো নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্য নেই, যার দাম লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে না। অস্বীকার করার উপায় নেই, আমাদের জীবনযাত্রার মানোন্নয়ন হয়েছে। বেতন বৃদ্ধি পেয়েছে, মজুরি বৃদ্ধি পেয়েছে।কিন্তু জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর নামে সরকারের একটি প্রতিষ্ঠান আছে। কিন্তু মৌলভীবাজারের বাজার গুলোতে তাদের কোন উপস্থিতি চোখে পড়েনা। রহস্যজনক কারণে তারা চুপ হয়ে আছে।

বাংলাদেশ সময়: ১:১৫:২৬ ● ২২১ বার পঠিত




আর্কাইভ